ওয়াইফাই ইন্টারনেটের গতি কম? ৫ কারণ জেনে নিন

110749WiFi_kalerkantho_pic

ওয়াইফাই ইন্টারনেট যারা ব্যবহার করেন তাদের অনেকেই যে গতি পাওয়ার কথা তা পান না। এর পেছনে কারণ কী হতে পারে তা নিয়ে বিভিন্ন প্রযুক্তিবিদরা কয়েকটি বিষয় জানিয়েছেন। এ লেখায় তুলে ধরা হলো ওয়াইফাই ইন্টারনেটের গতি কম পাওয়ার সমস্যা ও তা সমাধানের কয়েকটি উপায়। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ। ১. ইন্টারনেট চুরি আপনার ইন্টারনেটের সংযোগ কোনো প্রতিবেশী ব্যবহার করলে এতে আপনার ইন্টারনেটের গতি কমে যেতে পারে। তাই প্রতিবেশীদের থেকে সাবধান। অবশ্য কয়েকজন প্রতিবেশী মিলে একটি গতিশীল ইন্টারনেট নিয়ে তা শেয়ার করে ব্যবহার করাও একটি ভালো বুদ্ধি। তবে আপনার অজান্তে যদি তা চুরি হয়ে যায় তাহলে সতর্ক হোন। পাসওয়ার্ড গোপন রাখুন ও সন্দেহ হলে পরিবর্তন করুন। ২. অতিরিক্ত ডিভাইস আপনার এলাকায় যদি প্রচুর ওয়াইফাই সিগন্যাল থাকে এবং প্রচুর ডিভাইস ব্যবহৃত হয় তাহলে এমনটা হতে পারে। বহু ডিভাইসের কারণে ওয়াইফাই সিগন্যাল দুর্বল হয়ে যেতে পারে। এ সমস্যা থাকলে পিক আওয়ারে ইন্টারনেটের গতি কম পাবেন এবং অন্য সময় বেশি পাবেন। এ ক্ষেত্রে আপনার চ্যানেল পরিবর্তন করলে সুবিধা পাবেন। আপনি যদি ২.৪ গিগাহার্জ ফ্রিকোয়েন্সির রাউটার ব্যবহার করেন তাহলে তাতে ১১টি চ্যানেল থাকবে। আপনার কাজ হবে ১, ৬ কিংবা ১১ নম্বর চ্যানেল কিংবা অন্য কোনো চ্যানেলে পাল্টে নেওয়ায়। এ ছাড়া ৫ গিগাহার্জ চ্যানেলযুক্ত রাউটার ব্যবহার করলে এ সমস্যা হবে না। ৩. পুরনো যন্ত্রপাতি ওয়াইফাই রাউটার যদি পুরনো মডেলের হয় তাহলে তা বাদ দিন। এ ক্ষেত্রে আপনার রাউটারের গতি দেখে নিন। এটি যদি আপনার ইন্টারনেটের লাইনের তুলনায় কম গতির হয় তাহলে রাউটার পরিবর্তন করার প্রয়োজন হতে পারে। এগুলো যদি হয় বি কিংবা জি মডেল তাহলে ইন্টারনেট ধীর হতে পারে। তাই ব্যবহার করুন এন মডেল। ৪. সিকিউরিটি দুর্বলতা দূর করুন অনেক সময় নিরাপত্তা দুর্বলতার কারণে ওয়াইফাইয়ের গতি ধীর হতে পারে। এ ক্ষেত্রে ওয়াইফাই ইন্টারনেটের জন্য WEP বাদ দিয়ে কিছুটা নিরাপদ WPA/WPA2 ব্যবহার করুন। এটি ইন্টারনেট ব্যবহারে নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। ৫. দূরবর্তী স্থান ওয়াইফাই ইন্টারনেটের ক্ষেত্রে রাউটারের থেকে দূরবর্তী স্থানে স্বভাবতই ইন্টারনেট পৌঁছাতে সমস্যা হবে। এ ক্ষেত্রে রাউটার স্থাপন করতে হবে বাড়ির মাঝামাঝি স্থানে যেন সব স্থান থেকেই ভালোভাবে সিগন্যাল পাওয়া যায়। আপনার ডিজিটাল ডিভাইসগুলোর সবচেয়ে কাছাকাছি স্থানে কোনো বাধা ছাড়া রাউটার রাখার চেষ্টা করুন। বাড়িতে বহু ভারী ফার্নিচার থাকলে সেগুলোর আড়ালে নয় বরং সেগুলোর উপরে রাউটার বসান। এতে বাধামুক্তভাবে রাউটার আপনার ডিভাইসগুলোর সঙ্গে সংযুক্ত হতে পারবে। রাউটারের সঙ্গে আপনার ডিভাইসের মাঝে দ্রুত যোগাযোগের পথে বহু জিনিসই বাধা সৃষ্টি করতে পারে। এসব বাধার মধ্যে রয়েছে ধাতব দরজা, অ্যালুমিনিয়াম কাঠামো, ওয়াল ইনসুলেশন, পানির ট্যাংক বা অ্যাকুরিয়াম, আয়না, হ্যালোজেন লাইট, গ্লাস ও কংক্রিট। এ ধরনের বাধাগুলো যেখানে সবচেয়ে কম সেখানেই প্রয়োজনীয় যন্ত্র বা রাউটার স্থাপন করুন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply